নোয়াখালীর থাইল্যান্ড প্রবাসী আকবরের ভয়াবহ প্রতারণায় সর্বশান্ত ব্যবসায়ীরা

শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০২:৪৯ পূর্বাহ্ন

News Headline :
কয়রায় পানিবন্দি লক্ষাধিক মানুষের খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট, পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব বগুড়ায় নিখোঁজ রফিকুলের ১১ মাস পর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার গ্রেফতার ৪ শরণখোলায় সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে আসা একটি হরিন উদ্ধার আওয়ামী লীগের ওয়েবসাইটে এমপি মুকুলের ত্রান বিতরন কার্যক্রম বোরহানউদ্দিন প্রশাসনের মানবতায় ঠাই পেলো শিশু সন্তানসহ মা নড়াইলের লোহাগড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে এক যুবকের মৃত্যু থানায় ঢুকে পুলিশকে লাঞ্চিত করেছে আসামীর পিতা বগুড়ায় স্পিরিট পানে দুই বন্ধুর মৃত্যু বগুড়া সদরে করোনা রোগী সবচেয়ে বেশি ঘুর্ণিঝড় আম্পানে মোংলায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা

নোয়াখালীর থাইল্যান্ড প্রবাসী আকবরের ভয়াবহ প্রতারণায় সর্বশান্ত ব্যবসায়ীরা

বিশেষ প্রতিনিধি: প্রবাসীদের জীবনে একটি অভিশাপের নাম প্রতারণা। কোনো না কোনোভাবে প্রতারিত হয়নি এমন প্রবাসী খুঁজে পাওয়া কঠিন। বিদেশের বাজারে চাকুরী খুঁজতে এজেন্সীর দালাল,পাসপোর্ট, ইমিগ্রেশন-সহ প্রতিটি ক্ষেত্রেই তাঁরা হয়রানি হচ্ছেন। লাখ-লাখ টাকা ব্যয় করে স্বচ্ছলতার সুখের স্বপ্নে প্রবাসে গিয়েও নিরবে চোখের জল ফেলছেন। ব্যবসা-বাণিজ্য করতে গিয়ে এক শ্রেণির চতুর-ধান্দাবাজ প্রতারকের খপ্পর হতেও রেহাই মিলছেনা সহজ-সরল প্রবাসী বাংলাদেশীদের।

সূত্রে জানা গেছে, থাইল্যান্ডের “পাতায়া” শহরে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীরা এক প্রতারকের খপ্পরে মিথ্যা-ছলচাতুরীতে প্রতারণার শিকার হয়ে সর্বশান্ত হয়েছেন। দূতাবাসসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ করেও কোনো কার্যকর ফল পাননি নিঃস্ব হওয়া ওইসব ব্যবসায়ীরা।

নোয়াখালী জেলার কবিরহাট উপজেলার চাপরাশিরহাট গ্রামের নুরুল হকের ছেলে আকবর হোসেন সানী ওরফে সোহাগ। পাসপোর্টে নাম আকবর হোসেন, পাসপোর্ট নং- বি ওয়াই ০৭১১৬৫৩। নিজ এলাকায় নারী কেলেংকারী সহ নানা অপকর্মে জড়িত হয়ে গ্রাম্য সালিসে এলাকা হতে বিতাড়িত হন। ২০০৬ সালে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে ট্যুরিষ্ট ভিসায় থাইল্যান্ডে যান।কয়েক বছর তিনি থাইল্যান্ডের “পাতায়া” শহরে ঝাড়ুদারের কাজ করেন। পরিচয়সূত্রে এক প্রবাসী বাংলাদেশী কাপড় ব্যবসায়ীর দোকান ক্রয় করে কিছু টাকা প্রদান করে বাকি টাকা দেশে পাঠিয়ে দিবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন। ওই ব্যবসায়ী দেশে ফিরলে ‘আকবর’ টাকা পরিশোধে টালবাহানা শুরু করলে তিনি অসুস্থ হয়ে পঙ্গুত্ববরণ করেন।

বাংলাদেশী ব্যবসায়ী একরামুল হকের অর্থের প্রতি লোলুপ দৃস্টি পড়ে প্রতারক আকবরের। একরামুল হক ও তাঁর ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সিই-ও তানভীর রায়হানের
সাথে কৌশলে পরিচিত হয়ে সখ্যতা গড়ে তোলেন ধূর্ত আকবর । একরামুল হক থাইল্যান্ডে গেষ্ট হাউজ ও রেষ্টুরেন্ট ব্যবসা করার উদ্দেশ্য ‘পাতায়া’ শহরে গত ৩ মার্চ ২০১৭ তারিখে মি.তানাথন ননথিরুডজনা’র সাথে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়ে ২০৫/২৭-২৮ এবং ৩৮-৩৯ ঠিকানায় ২-৫ তলা পর্যন্ত ভবনের ১৫ টি রুম এবং নিচতলায় একটি রেষ্টুরেন্টসহ ভাড়া নিয়ে আকবর হোসেনকে উক্ত প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী হিসেবে পরিচালনার দায়িত্ব দিয়ে আসেন। যাহা ‘ফ্যান্টাসিয়া রেষ্টুরেন্ট এন্ড গেষ্ট হাউজ’ নামে থাইল্যান্ড সরকার কর্তৃক অনুমোদন লাভ করে।আকবর হোসেন ব্যবসায়ের ১৯ মাসের বিক্রয় রশিদ অনুযায়ী আয় (১,৭৮,৩৬,০৯৮) থাই বাথ, ব্যবসায়ে খরচ হয়েছে (৯৪,৪৯,৯৫৭) থাই বাথ, খরচ বাদে ব্যবসায়ে লাভের (৮৩,৮৬,১৪১) থাই বাথ, বাংলাদেশী টাকায় (২,২২,২৩,২৭৩) দুই কোটি, বাইশ লাখ, তেইশ হাজার দুইশত তিয়াত্তর টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ছাড়াও রেষ্টুরেন্ট এর বিক্রয় রশিদ গোপন করেও বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নেন।

এতেই ক্ষান্ত হননি প্রতারক আকবর হোসেন, তিনি স্বাক্ষর জালিয়াতির মাধ্যমে কোম্পানীর নিবন্ধন পত্রে অংশীদার হিসেবে তাঁহার নাম অন্তর্ভুক্ত করেন।প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন পত্রে প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে “পিজা এন্ড পাস্তা কোম্পানী লি.করেন।

 

এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৯ সেপ্টেম্বর থাইল্যান্ডের ” পাতায়া” শহরে প্রতারক আকবর ও তাঁর ভাই মোজাম্মেল তানভীর রায়হান ও চট্রগ্রামের আরেক প্রবাসী সেলিমের ওপর অতর্কিত হামলা চালান। প্রবাসী সেলিম হতেও আকবর প্রতারণার মাধ্যমে ১৮ লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন। সেলিম চট্রগ্রামের কোতোয়ালি থানায় তাঁর নামে মামলাও দায়ের করেছেন। আকবর বাংলাদেশীসহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের হয়রানি করে পুলিশ দিয়ে আটক করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন। একাধিক নামে প্রতারক আকবর কয়েকটি পাসপোর্ট ব্যবহার করেন বলে জানা গেছে।আকবরের ভাই মোজাম্মেলের বিরুদ্ধেও বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।

প্রতারক আকবরের এসব ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগী তানভীর রায়হান থাইল্যান্ডের ‘পাতায়া’ থানায় সাধারন ডায়েরী ও বাংলাদেশ দূতাবাসে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন । একরামুল হক স্বরাস্ট-সচিব ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media










© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD