বুধবার, দুপুর ১:৫৮, ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী
প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত : ০১৭৬৬২৩৮৮১৭
জাতীয় | আন্তর্জাতিক | খেলাধুলা | বিনোদন | রাজনীতি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন |

ছাত্রদল সভাপতি প্রার্থীদের মধ্যে প্রচারণা ও সমর্থনে এগিয়ে হাফিজুর 

আপডেট : সেপ্টেম্বর, ১০, ২০১৯, ১১:২২ অপরাহ্ণ

272

স্টাফ রিপোর্টার:
আসন্ন ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী  ছাত্রদলের ৬ষ্ঠ কেন্দ্রীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।কাউন্সিলের ঘোষণায় প্রাণ ফিরেছে তৃণমূল পর্যায়ের ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে।প্রত্যক্ষ ভোটে তৃনমূল নেতাকর্মীরা তাদের নেতা নির্বাচিত করবেন। সর্বত্র সাজঁ সাজঁ রব। নতুন উম্মাদনায় মেতে উঠেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রসমাজ। পুরো দেশের ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের নজর এখন ১৪ সেপ্টেম্বরের কাউন্সিলের দিকে। কে আসছেন ছাত্রদলের শীর্ষ  নেতৃত্বে?
সভাপতি পদের প্রার্থীদের মধ্যে প্রচারণায় রয়েছেন কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, হাফিজুর রহমান, মাহমুদুল হাসান (বাপ্পী)  রিয়াদ মো. তানভীর রেজা রুবেল, মো. এরশাদ খান, মো. ফজলুর রহমান খোকন, এস এম সাজিদ হাসান বাবু, এবিএম মাহমুদ আলম সরদার।
এবারের কাউন্সিলকে ঘিরে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। প্রতিবার কেন্দ্র হতে কমিটি ঘোষণা করা হলে সব নেতাদের সন্তুষ্ট করা যায়না। বিক্ষোভ, সংঘর্ষ এমনকি  কমিটি নিয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এবার পরিস্থিতি ভিন্ন, গুরুত্ব  বেড়েছে তৃণমূল নেতাদের। ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচনের ঘোষণার পর থেকেই প্রার্থীরা যাচ্ছেন তৃণমূল নেতাদের কাছে। বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, জেলা ও মহানগরের শীর্ষ নেতা ও ভোটারদের কাছে ভোট এবং দোয়া চাইছেন প্রার্থীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রার্থীদের অনুসারীরা প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
তৃণমূল নেতাকর্মীরাও এবার চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন প্রার্থীদের অতীত আমলনামা নিয়ে।খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনসহ রাজপথের দলীয় কর্মকান্ড ও  ১/১১ এর সময়ে এসব প্রার্থীদের  কী ভূমিকা- এসব বিচার-বিশ্লেষণ করে তারা পছন্দের যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিতে চাইছেন। কাউন্সিলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এ দুটি পদে সারা দেশের ১১৭ টি সাংগঠনিক ইউনিটের ৫৮৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে নির্বাচিত করবেন আগামী দিনের নেতৃত্ব। শীর্ষ এই দুটি পদের মধ্যে সভাপতি পদে ৮ জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ১৯ জন বৈধ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।
সভাপতি/সম্পাদক প্রার্থীদের মধ্য সকলেই রয়েছেন নির্বাচনী প্রচারণায় জেলা সহ ছাত্রদলের সাংগঠনিক ইউনিটগুলোতে।এদের মধ্য সভাপতি প্রার্থী হিসেবে আলোচনা সমালোচনায় রয়েছেন কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ যার পিতা কাজী রফিক যশোরের কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এবং উপজেলা চেয়ারম্যান। তার বড় ভাই কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্তো কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সেজ ভাই আজহারুল ইসলাম মানিক কেশবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক, মেঝ ভাই কাজী মোজাহিদুল ইসলাম যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক। বিগত দিনে একাধিক মামলা হামলায় জর্জরিত হয়ে রাজপথে ভূমিকা রাখলেও পরিবার আ’লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত এ তকমায় তাকে যথাযথ মূল্যায়নের সুযোগ হয়নি।ছাত্রদলের  নেতা কর্মীরা মনে করেন তাঁর পরিবার আ’লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত তা ঠিক,কিন্ত শ্রাবণ জাতীয়তাবাদী আদর্শে রাজনীতি করেন। তিনি বৈধ প্রার্থী বলেই ঘোষণা দিয়েছেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটি।এবার প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে তৃণমূলের মূল্যায়নের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।
প্রচার প্রচারণায় একটা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বাগেরহাটের সন্তান হাফিজুর রহমান।ছাত্ররাজনীতির কারণে একাধিকবার হামলার শিকার হয়েছেন। ১/১১’র সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে হামলা-মামলার শিকার হয়েছেন। রাজপথে ছাত্রলীগের হামলায় রক্তাক্ত হয়ে মৃত্যুর দুয়ার হতে  ফিরে এসেছেন। ক্লিন ইমেজের অধিকারী এ ছাত্রনেতার ঢাবি ক্যাম্পাস সহ সারা বাংলাদেশেই তৃনমূলের নেতাকর্মীদের নিকট স্বচ্ছ ভাবমূর্তি রয়েছে। বিগত সব আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় থেকেছেন। দক্ষ সংগঠক হিসেবে পরিচিত হাফিজুর সভাপতি পদে প্রার্থী হয়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের কাছে। অদম্য’১৯ শিরোনামে নির্বাচনী ইশতেহার দিয়ে ভোটারদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন।
ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির কয়েক কেন্দ্রীয় নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান শ্রাবণকে আ’লীগ পরিবারের তকমা দিয়ে তৃণমূলের একটা অংশ মুখ ফিরিয়ে নিলেও বিগত দিনে দলে তাঁর ত্যাগ মামলা, নির্যাতন সব মিলিয়ে তৃণমূলের অনেক নেতা কর্মীরই তার প্রতি নিরব সমর্থন রয়েছে। আর ক্লিন ইমেজ ও দক্ষ সংগঠক হিসেবে পরিচিত হাফিজুর ঢাবি ছাত্র নেতা হওয়ায় তিনিও বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন। কয়েকটির জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের নেতারা জানান ঢাবি ক্যাম্পাস হতে সভাপতি নির্বাচিত হলে ছাত্রদলকে সুসংগঠিত ও আন্দোলন সংগ্রামে গতি আসবে। বেগম জিয়ার মুক্তি আন্দোলন ত্বরান্বিত হবে। সেসব বিবেচনায় হাফিজুর এগিয়ে রয়েছেন।
সভাপতি পদে লড়ছেন মামুন খান। শুরুতে তার প্রার্থিতা বাতিল হলেও আপিলের মাধ্যমে তা ফিরে পেয়েছেন। জানা যায়, প্রার্থীদের মধ্যে বিগত আন্দোলন সংগ্রামে মামুন খানও নির্যাতনের স্বীকার হয়েছিলেন। তাই সাধারণ কর্মীদের মাঝে তার জনপ্রিয়তা রয়েছে।
বগুড়ার ফজলুর রহমান খোকন- ও আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছেন।  এছাড়াও সভাপতি পদে জামালপুরের সাজিদ হাসান বাবুও রয়েছেন আলোচনায়।
অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে বৈধ ১৯ জন প্রার্থীর মধ্যে আলোচনায় রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যাল (ডাকসু) নির্বাচনে ভিপি প্রার্থী হিসেবে অংশ নেয়া নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমান।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম আহ্বায়ক ও বরিশালের প্রার্থী তানজিল হাসান। তিনি ১/১১’র স্বৈরাচার সরকার হটাও আন্দোলন থেকে শুরু করে বিএনপি ও ছাত্রদল ঘোষিত সকল আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন। বরিশালের আরেক প্রার্থী সাইফ মাহমুদ জুয়েলও বেশ আলোচনায় রয়েছেন। তার প্রার্থিতা বাতিল হলে পরবর্তীতে আপিল করার  পর তিনি প্রার্থিতা ফিরে পেয়ে প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হলের ছাত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি সাতক্ষীরার সন্তান আমিনুর রহমান আমিন। প্রতিদ্বন্দিতা করছেন সাধারণ সম্পাদক পদে।
সূর্যসেন হলের শিক্ষার্থী শাহ নাওয়াজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তিনিও আলোচনায় রয়েছেন।
জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্রথম নারী সাধারণ সম্পাদক হতে চান ডালিয়া রহমান। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কোথাও গেলে তার গাড়িবহরের সঙ্গে স্কুটি নিয়ে থাকতেন ডালিয়া। তিনি একমাত্র নারী প্রার্থী হওয়ায় আলোচনায় রয়েছেন। সম্পাদক পদে লড়ছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মো. জাকিরুল ইসলাম জাকির তিনিও ব্যাপক আলোচনায় রয়েছেন।এছাড়াও সম্পাদক পদে আরও যারা প্রার্থী রয়েছেন।মোহাম্মদ কারিমুল হাই (নাঈম), মাজেদুল ইসলাম রুমন, শেখ আবু তাহের, সাদিকুর রহমান, কেএম সাখাওয়াত হোসাইন, সিরাজুল ইসলাম, মো.ইকবাল হোসেন শ্যামল, মুন্সি আনিসুর রহমান, মো. মিজানুর রহমান শরিফ, শেখ মো.মশিউর রহমান রনি, সোহেল রানা ও কাজী মাজহারুল ইসলাম

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: তানিয়া মাহমুদ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: মিরপুর ১০ গোল চত্বর, ঢাকা
মোবাইল: +৮৮০১৭৬৬২৩৮৮১৭
ইমেইল: dhakaobserverbd@gmail.com

কারিগরি সহায়তা: AMS IT & Solutions

শিরোনাম :
★★ কালিয়ায় বাল্যবিবাহের দায়ে ৩ জনের কারাদন্ড ★★ একজন বিতার্কিক শেখ সুমন ★★ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকদের প্রতিবাদ বশেমুরবিপ্রবি’তে সাংবাদিক বহিষ্কার ★★ বরিশালে জমকালো আয়োজনে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ★★ ছাত্রনেতা মাহি’র পিতার ইন্তেকাল, হাফিজ সহ বিএনপি নেতাদের শোক ★★ বিএম কলেজে ব্যতিক্রমধর্মী বিতর্ক অনুষ্ঠান ★★ অসুস্থ যুবদল নেতা কাইয়ুমের স্ত্রী ও আতিক ওসমানীর শয্যাপাশে নাজিম উদ্দীন আলম ★★ কয়রায় উপজেলা চেয়ারম্যান কর্তৃক সাংবাদিক লাঞ্চিত ★★ ভোলায় গৃহবধূ হত্যা: বিচারের দাবি ★★ দৌলতখানের গৃহবধূ নুসরাত হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন