নড়াইলের কাশিপুর ইউনিয়নের ধোপাদাহ গ্রামে ধর্ষণের শিকার ৬ বছরের শিশু

শুক্রবার, ০৫ Jun ২০২০, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন

নড়াইলের কাশিপুর ইউনিয়নের ধোপাদাহ গ্রামে ধর্ষণের শিকার ৬ বছরের শিশু

মো:রফিকুল ইসলাম,নড়াইল:
নড়াইলের কাশিপুর ইউনিয়নের ধোপাদাহ গ্রামে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। গতকাল (৭ এপ্রিল)মঙ্গলবার বিকাল পাঁচটার দিকে ধোপাদাহ গ্রামের ছন্দ নাম রাজা শেখের মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়,(৭ এপ্রিল)মঙ্গলবার বিকাল পাঁচটার দিকে ধোপাদাহ গ্রামের ছন্দনাম রাজা শেখের মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার শিশু ছন্দনাম মনি খানম,(৭)পিং-রাজা শেখ।

মেয়েটি বিকালে ছোট বাচ্চাদের সাথে পলা পলি খেলতে থাকে,এ সময় লম্পট ছোটন ফকির,(১৪) পিং-রাজ্জাক ফকির,মনি কে ডাক দেয়,শিশু মনি ছোটন (১২) এর কাছে গেলে মনি কে ফুসলিয়ে পাসের একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় মনি কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি চলে আসলে মনির মা দেখতে পাই মনির স্যালোয়ার দিয়ে রক্ত ঝড়ছে মনির মা মনির কাছে জিগ্গাসা করে তোর পাইজামা দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে কেন তোর কি কোন যায়গা কেটে গেছে।

মনি কাঁদতে কাঁদতে মায়ের কাছে সবকিছু খুলে বলে। পরে মনির মা বাড়ির পাশে মুরব্বীদের বিষয়টি জানাই এবং ছোটনের বাবা কে বলে কিন্তু সে কোন সুরহা করে নি। এরপর মনির মা স্থানীয় লোকজনদের সাহায্যে মনি কে নিয়ে যাই চোরখালি গ্রামের বিকাশ ডাক্তারের কাছে। বিকাশ ডাক্তার মনির ক্ষতস্থানে দুইটি সেলাই দেন এবং প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। পরের দিন সকাল পর্যন্ত বিষয়টি সারা গ্রাম ছড়িয়ে পড়লে পরে ঘটনাস্থলে লোহাগাড়া থানার পুলিশ এসআই মিলটন কুমার দেবদাস, এসআই আতিকুজ্জামান, কনস্টেবল সাইফুল, মহিলা পুলিশ সহ এসে ছোটন কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এবং মনিকে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। মনির মা এ প্রতিবেদক কে জানান,আমার শিশু মেয়ের সাথে এই জঘন্য ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই মাননীয় এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা সাহেবের কাছে। আমার শিশু মেয়েটি বাড়ির পাসে খেলা ধুলা করছিল তখন ছোটন মনি কে ডেকে নিয়ে মূখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে।

আমার শিশু মেয়ে মনি কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে আসলে মনির পাইজামা দিয়ে রক্ত ঝরছিল দেখে মনির কাছে সুনি মা তোর কোন যায়গায় কেটে গেছে না কি,তখন মনি আমাকে বলে ছোটন আমাকে ডেকে নিয়ে যোর করে আমার সাথে এসব করেছে এজন্য রক্ত বের হচ্ছে বলে জানায়। মনির মা আরো জানান,লোহাগড়া থানা থেকে পুলিশ এসে ছোটন কে ধরে থানায় নিয়ে গেছে ও মনি কে নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

যাতে মনির মত আর কোনো অবুঝ শিশুর সাথে এমন ঘটনা না ঘটে,এসব অমানুষদের কঠিন বিচার করা হোক বলে বিচারের দাবি জানান মুনিয়ার মা। লোহাগড়া থানার এস আই মিলটন কুমার দেবদাস জানান,খবর পেয়ে দ্রুত ধোপাদাহ যায়,ঘটনা সুনে ছেলে কে থানায় নিয়ে আসি,আর শিশুটিকে টেষ্টের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ও আসামির বিরুধ্যে মামলার পস্তুতি চলছে বলে নিস্চিত করেন।

Please Share This Post in Your Social Media










© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD