চরমোনাইতে নারীসহ একই পরিবারের ৪ সদস্যকে পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

চরমোনাইতে নারীসহ একই পরিবারের ৪ সদস্যকে পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা

খলিফা মাইনুল:
বরিশালের চরমোনাইয়ে জমিতে টয়লেট নির্মাণেকে কেন্দ্র করে অসহায় সাধারন এক পরিবারের ৪ সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে । গত রবিবার (১৫ ই মার্চ) কন্টাকটার বাড়ির ভিতরে বসে এ হামলা চালায় বকাটে ও সন্ত্রাসীদের একটি সন্ত্রাসী দল ।

 

এসময় হামলা চালিয়ে লক্ষাধিক টাকা ও মালামাল লুটপাট ও মোটরসাইকেল এবং ঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। আহতরা হলেন চরমোনাই গ্রামের বাসিন্দা মৃত আবুয়াল খানের ছেলে মোঃ হেমায়েত উদ্দিন (৬০) তার স্ত্রী নূরজাহান বেগম(৪৫), মেয়ে দোলন (২৫)ও ভাইয়ের মেয়ে মিনারা বেগম (৩৫) । একই পরিবারের চার সদস্যের ওপর এমন হামলা এলাকায় সাধারণ জনগনের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টির করছে ।

 

সন্ত্রাসী শামীম এলাকার সকল ধরণের অপকর্মের সাথে জড়িত থাকার কথা জানা গেছে । আহত হেমায়েত উদ্দিন জানান, প্রায় ১৫ বছর পূর্বে ২০০৪ সালে চরমোনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চরমোনাইর পীর সাহেব রেজাউল করিম ও স্থানীয় শালিস মিমাংসার মাধ্যমে অত্র জমিতে সীমানা নির্ধারণ করে দেয়া হয় । অত্র জমির সীমানার পিলার বর্তমান পর্যন্ত বিদ্যমান আছে।

 

কিন্তু গত ১৩ ই মার্চ সকালে তার জমিতে ওই গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী সন্ত্রাসী শামীম ও তার দলবল নিয়ে জমি দখল করে জোরপূর্বক ভাবে টয়লেট নির্মাণের চেষ্টা চালায় এসময় জমির মালিক হেমায়েত উদ্দিন এসে সন্ত্রাসীদের নিষেধ করলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং মারধ করে । পরে স্থানীয়রা দৌড়িয়ে আসলে নির্মাণকাজ স্থগিত রেখে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় পরের দিন ১৪ ই মার্চ সকালে বখাটে সন্ত্রাসী শামীমের নেতৃত্বে আসলাম, কালু্‍, মতলেব, সাদ্দাম সহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র রামদা, ছুড়ি,লাঠি নিয়ে ওই জমিতে পুনরায় টয়লেট নির্মাণের চেষ্টা চালায় এসময় হেমায়েত উদ্দিন তাদেরকে পূনরায় নিষেধ করালে সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে এলোপাতাড়ি ভাবে কুপিয়ে ও লাঠিপেটা করে গুরুতর জখম করে।

 

তার ডাক চিৎকার শুনে তার স্বজন নুরজাহান বেগম, দোলন ও মিনারা বাঁচানোর জন্য দৌড়ে ছুটে আসলে তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে । পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় । বর্তমানে একই পরিবারের চারজন সদস্য বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে ।

 

এ হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক জানান, আহত ৪ জনের অবস্থা খুবই গুরুতর কিন্তু এর ভিতর দোলন এর অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে । এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে সন্ত্রাসী শামীম নারী কেলেঙ্কারি, মাদক ব্যবসায়ী ও নারী পাচারকারীসহ একাধিক মামলার আসামি ।

 

আহত দোলন জানান, বর্তমানে এ সন্ত্রাসীরা আমাদের পরিবারকে হত্যাসহ লাশ গুম করার হুমকি দেয় । এ নিয়ে আমি ও আমার পরিবার প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুকির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি । অন্যদিকে তিনি আরো বলেন, এ সন্ত্রাসীরা আমাদের উল্টো সামাজিক ভাবে হেনস্থ ও ফাঁসানোর জন্য সন্ত্রাসীরা নিজের মাথায় কেটে এ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এই ঘটনা নিয়ে কতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলে স্বজনদের আরও জানান।

Please Share This Post in Your Social Media











© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD