শেষ জমিটুকুও ধরে রাখতে পারলেন না ফুল মিয়া

বৃহস্পতিবার, ১৬ Jul ২০২০, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন

শেষ জমিটুকুও ধরে রাখতে পারলেন না ফুল মিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক:
শেষ সম্বল খাস জমিটুকু ধরে রাখতে পারলেন না রসুলপুর চর কলোনীর হতদরিদ্র বাসিন্দা সংবাদ পএের হকার ফুল মিয়ার । মিথ্যা অভিযোগে জেলে দিয়ে ভূমি দস্যুরা দখল করে নিয়েছে শেষ সম্বলটুকু । তাই স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ফুল মিয়া হাওলাদারের স্থান হয়েছে ফুটপাতে । জানাগেছে, গত বছরের জানুয়ারিতে সহায় সম্বলহীন পএিকার হকার ফুল মিয়া হাওলাদারকে নগরীর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রসুলপুর চরে কোস্টগার্ড সংলগ্ন দক্ষিণ পার্শ্বে জেএল নং – ৬২ ও ৪৩৯ নং দাগের ১০ শতাংশ খাস জমি বরাদ্দ দেয় জেলা প্রশাসক ।

 

এর পর পরই ভূমিহীন হিসাবে বরাদ্দ পাওয়া ফুল মিয়ার ওই জমি দখলের পায়তারা শুরু করে ৬ নং ওয়ার্ডস্হ গগন গলির বাসিন্দা মৃত রিপন আদু হাওলাদারের ভূমি খেকোপুএ রিপন হাওলাদার,তার ছেলে অভি,কাটপট্রির মৃত মোতালেব হাজীর ছেলে জয়নাল হাজারী ও রসুলপুরের রুহুল । ফুল মিয়া অভিযোগ করেছেন অভিযুক্তরা জাল জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া কাগজপএ তৈরি করে তার নামে বরাদ্দকৃত জমি দখলের পাঁয়তারা করে এজন্য তাকে জমি থেকে উৎখাতের জন্য বহুবার হুমকি-ধামকি দিয়েছে ।

 

শুধু তাই নয়, গত ২৩ নভেম্বর ফুল মিয়াকে প্রকাশ্যে মারধরও করে । এর পরেও খ্যান্ত হয়নি ভূমিখেকোরা । জমি থেকে স্বেচ্ছায় উৎখাত না হলে ফুল মিয়াকে জীবন নাশের হুমকিও দেয়া তারা । তিনি বলেন শেষ সম্বল জমিটুকু রক্ষায় আদালতে মামলা করছি । এর পরিপ্রেক্ষিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নির্দেশে গত ১ নভেম্বর ওই সম্পওিতে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে দখলদারদের নোটিশ প্রদান করেন কোতয়ালী মডেল থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক ( এ এসআই) মো.মহসিন হোসেন । ওই নোটিশ পাওয়ার পরে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্তরা ।

 

এমনকি নোটিশ উপেক্ষা করে জমি দখলেরদ ব্যর্থ হয়ে গত ২৩ নভেম্বর মারধর করে ফুল মিয়াকে । মার ধরেই থেমে থাকেনি ভূমিদস্যুরা । ফুল মিয়ার অভিযোগ গত ২৩ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসক কার্যালয় থেকে মুঠোফোনে ডেকে নেয়া হয । সেখানে বসে তাকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট । তবে এর সুনির্দিষ্ট কোন কারণ জানেন না বলে দাবি ফুল মিয়ার তিনি বলেন,ভূমিদস্যুরা ষড়যন্ত্র করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আমাকে সাজা প্রদান করিয়েছে । ভূমিদস্যুরা আমার বিরুদ্ধে কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের এএসআই মহসিন হোসেনকে হুমকি দেয়ার অভিযোগ করেছে ।

 

এসব অভিযোগ সাজাপ্রাপ্ত হয়ে জেলে থাকার সুযোগে ভূমিদস্যুরা আমার শেষ সম্বল জমি এবং ঘরটুকু দখল করে নেয় । এসময় তারা আমার স্ত্রীকে ঘর থেকে নামিয়ে দেন । বর্তমানে স্ত্রীকে তার বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিতে হয়েছে । কিন্ত এখন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাএীযাপন করতে হচ্ছে । এ প্রসঈে কোতয়ালী মডেল থানার এএসআই মো.মহসিন হাওলাদার বলেন,আদালত থেকে একটি আদেশের প্রেক্ষিতে ওই জমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে নির্দেশ দেয়া হয় ।

কিন্ত ফুল মিয়া নামের ওই ব্যক্তি আমাকে কোন ধরনের হুমকি বা অসম্মান করেনি । গরিব হলেও ফুল মিয়া ভাল লোক বলে মনে হয়েছে । তবে কি কারনে তাকে সাজা ভোগ করতে হয়েছে সে বিষয়টি আমার জানা নেই

Please Share This Post in Your Social Media










© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD