কয়রায় স্বেচ্ছাশ্রমে বেঁড়িবাধ মেরামত করছে আওয়ামী লীগ

মঙ্গলবার, ১৪ Jul ২০২০, ০৫:০৩ পূর্বাহ্ন

কয়রায় স্বেচ্ছাশ্রমে বেঁড়িবাধ মেরামত করছে আওয়ামী লীগ

কয়রা প্রতিনিধি: সুপার সাইক্লোন আম্পানে বিধ্বস্ত খুলনার কয়রা উপজেলার বেঁড়িবাধ ভেঙ্গে গোটা এলাকা প্লাবিত, লোনা পানির আগ্রাসন থেকে জনগণকে বাঁচাতে স্বেচ্ছাশ্রমে বেড়িবাঁধ মেরামতে কাজ করছে কয়রা উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতা কর্মিরা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জি এম মোহসিন রেজার ডাকে ডাকে সাড়া দিয়ে বাঁধ মেরামতে যুক্ত হয়েছেন এলাকার সাধারন মানুষও ।

বিগত সাতদিন ধরে মহারাজপুর ইউনিয়নের দশহালিয়া, লোকা, উত্তরবেদকাশি ইউনিয়নের রত্না, কয়রা সদর ইউনিয়নের ২নং কয়রা খালের গোড়া, হরিণখোলা,গোবরা ঘাটাখালি,হরিণখোলাসহ উপজেলা যে সকল এলাকা পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধ ভেঙ্গে পানি লোকালয় ঢোকে তারা মেরামত ও সংস্কারে কাজ করে প্রায় সব কয়টি পয়েন্টে পানি আটকাতে কাজ করে যাচ্ছেন ।

শুক্রবার (২৯মে) উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জিএম মহসিন রেজার নেতৃত্বে সকাল সাতটা থেকে দুপুর পর্যন্ত গোবরা ঘাটাখালি ও হরিণখোলা এলাকায় ভাঙ্গা বাঁধে পানি আটকাতে কাজ করে উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা সাধারন মানুষ।এ সময় মেরামত কাজে অংশ নেয় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জি এম মোহসিন রেজা,সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম বাহারুল ইসলাম,কয়রা সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি এসএম জিয়াদ আলী, সাবেক ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক যুবলীগ নেতা মেজবাহ উদ্দিন মাসুম, কয়রা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এইচ এম হুমায়ুন কবির, ইউপি সদস্য লুৎফর রহমান, রোকনুজ্জামান, আব্দুর রব খোকন, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শরিফুল ইসলাম টিংকু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আক্তারুল ইসলামসহ কয়েক হাজার সাধারণ মানুষ উপস্থিত থেকে বাঁধ মেরামতের কাজ করেন।

জানা যায় অন্য সব পয়েন্টে পানি আটকানো হয়েছে, ২/১ দিনের ভিতর গোবরা ঘাটাখালি ভাঙ্গনের পানি কাটতে সক্ষম হবেন তারা। উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি জিএম মোহসিন রেজা বলেন, উপজেলার অধিকাংশ বেড়িবাঁধ এখন ঝুঁকিপূর্ণ।স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবুর নির্দেশে আমরা স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে সাময়িক পানি আটকাতে কাজ করছি ইনশাল্লাহ আমরা সফল হবো। কিন্তু অতি সত্বর টেকসই মজবুত বেঁড়িবাধ না হলে আবার এ ভঙ্গুর বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে গোটা এলাকা প্লাবিত হবে। তিনি আরও বলেন কয়রা উপজেলাকে সুরক্ষিত রাখতে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও আমরা দীর্ঘদিন ধরে টেকসই বেড়িবাঁধ এর জন্য নানা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি ।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবেও আমাদের এলাকার কৃষি এবং মৎস্য খাতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এজন্য নাজুক বেরিবাধ দায়ী। তিনি বলেন মাননীয় পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু ১দিন আগে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন শেষে অক্টোবরে টেকসই বেড়িবাঁধের কাজ শুরু করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন।

Please Share This Post in Your Social Media










© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD