আজো খুজিঁ তোমায়

বৃহস্পতিবার, ০৪ Jun ২০২০, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

News Headline :
লালমোহনে সাংবাদিকের কাছে চাঁদা দাবী করল কথিক হোন্ডা নেতা সম্রাট বগুড়ায় এক প্রতিবন্ধী’র লাশ উদ্ধার কয়রায় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবার উদ্বোধন করলেন সাংসদ বাবু বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বগুড়ায় মানববন্ধন কয়রায় কৃষকের কাছ থেকে লটারির মাধ্যমে ধান ক্রয় উদ্বোধন করলেন সাংসদ বাবু কয়রায় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে সাংসদ বাবু’র খাদ্য সামগ্রী বিতরন কয়রায় বানভাসি মানুষের পাশে মানব কল্যাণ ইউনিট কয়রায় সাংসদ সদস্য বাবুর নির্দেশনায় স্বেচ্ছাশ্রমে ভাঙ্গনে রিং বাঁধ সমাপ্ত কয়রায় স্বেচ্ছাশ্রমে বেঁড়িবাধ মেরামত করছে আওয়ামী লীগ ইউরোপ আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলামের ব্যাপক চাঁদাবাজি, ক্ষুব্ধ প্রবাসীরা

আজো খুজিঁ তোমায়

খলিফা মাইনুল:

বাংলাদেশের অন্যতম রাজনীতিবিদ দক্ষিনাঞ্চলের স্বপ্নদ্রষ্টা , আধুনিক বরিশালের রূপকার হিসেবে পরিচিত বরিশাল-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র শওকত হোসেন হিরনের ৬ম মৃত্যুবার্ষিকীতে বরিশালের সাধারণ মানুষ আজো খোঁজে তোমায় ।

২০১৪ সালের ৯ এপ্রিল সকালে ৫৮ বছর বয়সে নগরবাসীকে কাঁদিয়ে চির বিদায় নেন তিনি। গত ২০১৪ সালের ২২ মার্চ রাত ১০টার দিকে ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার এ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ২৪ মার্চ রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে নিয়ে আবার ৩ এপ্রিল দেশে ফিরিয়ে আনা হয় এবং ঢাকার এ্যাপোলো হাসপাতালে লাইফ সার্পোট দিয়ে রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৯ এপ্রিল সকালে হিরণ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

১১ এপ্রিল বরিশাল নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে নামাজে জানাজা শেষে মুসলিম গোরস্তানে মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন হিরন। বরিশাল শহরের দক্ষিণ আলেকান্দা এলাকার নানা বাড়িতে ১৯৫৬ সালের ১৫ অক্টোবর শওকত হোসেন হিরন জন্মগ্রহণ করেন। লেখাপড়ার সুবাধে ছোট বেলা থেকেই নানা বাড়ি বরিশাল শহরে তার বসবাস।

১৯৭৭ সালে জাসদ ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে হাতেখড়ি হওয়া শওকত হোসেন হিরন ১৯৮৮ সালে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বরিশাল সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে বরিশাল সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে শওকত হোসেন হিরন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে মেয়র নির্বাচিত হন। পরে ২০১৪ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বরিশাল সদর আসনের এমপি নির্বাচিত হন তিনি। রাজনৈতিক জীবনে তিনি সর্বশেষ বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং এরআগে তিনি জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি।

হিরনের উত্তরাধিকার হিসেবে রয়েছেন তার স্ত্রী জেবুন্নেছা আফরোজ এবং একমাত্র মেয়ে রোশনী হোসেন তৃণা ও এক ছেলে সাজিদ হোসেন রাফসান। মৃত্যুর কয়েক বছর হলেও বরিশালের সকল নাগরিক আজো খোঁজে হিরনকে । ৯ এপ্রিল এলেই মানুষ কান্নায় ভেঙে পড়ে এবং সৃষ্টি কর্তার প্রতি তার জন্য দোয়া হাত বারিয়ে দেয় । তাকে খুঁজে পাওয়া যায় তার কর্মের মাধ্যমে আর তিনিই আমাদের মনিকোঠায় আজীবন বেচেঁ থাকবেন ।

Please Share This Post in Your Social Media










© AMS Media Limited
Developed by: AMS IT BD